বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:০১ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

আখাউড়ায় আগাম লিচু বিক্রি শুরু
সজল আহাম্মদ খাঁন / ২৫৩ বার
আপডেট সময় বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২

সজল আহাম্মদ খান:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় মৌসুমের রসালো মিষ্টি ফল লিচু বাজারে উঠতে শুরু করেছে। প্রচন্ড গরম থাকায় লিচুর কদর ও রয়েছে বেশ ভালো। স্থানীয় বাজারে উঠা ওইসব লিচু চড়া দামে হাঁকিয়েছেন বিক্রেতারা। প্রতিশ লিচু বিক্রি হচ্ছে ২শ ৫০টাকা থেকে ৩শ টাকা। আখাউড়া পৌরশহরের সড়ক বাজার এলাকায় মিষ্টি ও রসালো লিচু নিয়ে বসে বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত আগাম লিচুর ভালো চাহিদা রয়েছে বলে জানান বিক্রেতারা। বিক্রিতে ভালো লাভ হওয়ায় খুশি লিচু চাষিরা। উপজেলা কৃষি অফিস জানায় পৌরশহর সহ উপজেলায় প্রায় ৯০ হেক্টর জমিতে লিচুর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। ইতিমধ্যে আগাম জাতের দেশীয় লিচু বাজারে বিক্রি শুরু হয়েছে। বোম্বাই, পাটনাই, চায়না লিচু বাজারে উঠতে আরো ১০-১২ দিন লাগবে। সরেজমিনে পৌরশহরের সড়ক বাজার গিয়ে দেখা যায় উপজেলার আশেপাশের বিভিন্ন এলাকার বাগান থেকে বিক্রেতারা লাল টসটসে রসালো লিচু নিয়ে পসরা সাজিয়ে বসে আছেন। বিক্রির জন্য চলছে তাদের হাক ডাক। লিচু বিকিকিনিতে যোগ দিচ্ছেন স্থানীয় চাষী ব্যবসায়ী ও পাইকাররা। তবে এখানকার লিচু রসালো মিষ্টি ও স্বাদে অতুলনীয় হওয়ায় জেলা সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এর কদর রয়েছে বেশ ভালো। এখানে প্রতিশ লিচু বিক্রি হচ্ছে ২শ৫০টাকা থেকে ৩শ টাকায়। উপজেলার আনোয়ারপুর গ্রামের লিচু চাষী মোঃ জাকির হোসেন বলেন তার ৬০টি লিচু গাছ রয়েছে সবগুলো গাছে লিচু এসেছে তবে এখনও পরিপক্ক হয়নি। কয়েকটি গাছে আগাম লিচু পাকতে শুরু করায় গত দুইদিন ধরে আগাম জাতের লিচু বাজারে বিক্রি করছেন এতে তিনি বিক্রিতে ভাল দাম পাচ্ছেন বলে জানায়। বাগান মালিক মোস্তফা মিয়া বলেন বাড়ির পাশে ২টি লিচু বাগানে ৪৫টি গাছ রয়েছে। এ মৌসুমে তার কাছে ভাল লিচু এসেছে। এখনো ভালো করে পাকেনি। আগামী ১০-১৫ দিনের মধ্যে পুরোপুরি পেকে যাবে। তবে বাগানে কিছু দেশি জাতীয় লিচু পাকতে শুরু করেছে তাই বিক্রি করতে নিয়ে আসা। তিনি আরো বলেন এলাকার বোম্বে পাটনাই ও চায়না সহ বিভিন্ন জাতের লিচু চাষ করা হয়। আগামী সপ্তাহের মধ্যে পুরোপুরি লিচু বিক্রি শুরু হবে বলে আশা করছেন উপজেলার উত্তর ইউনিয়নের রামধননগর, ,চাঁনপুর, আনোয়ারপুর, লিচু গাছ থেকে পেড়ে বাজারজাত করতে নারী-পুরুষসহ সব বয়সের লোকজন এ কাজে জড়িয়ে পড়ছেন। যেন লিচুতে মেতে উঠেছে পুরো এলাকা। ওইসব এলাকায় এমন কোন বাড়ী নেই যার বাড়িতে ৪-৮টি লিচু গাছ নেই। থোকায় থোকায় কাঁচাপাকা বাহারি লিচুতে যেন সবার মন কাঁড়ছে। সেইসাথে লিচুর মৌ মৌ গন্ধ আর ছোট পাখিদের কিচিরমিচির শব্দে এলাকায় এখন মুখরিত হয়ে উঠেছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাহানা বেগম বলেন, এ উপজেলায় দেশি বোম্বাই পাটনাই চায়না লিচুর চাষ হয়েছে। লিচু চাষের জন্য এখানকার মাটি খুবই ভালো। ফলন ভালো হওয়ায় দিন দিন লিচু চাষে জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলন বৃদ্ধিতে কৃষকদের সার্বিক সহযোগিতা করা হচ্ছে বলে জানায়। তিনি আরো বলেন এখানকার লিচু এখনো ভালো করে পাকেনি। আগামী ১০-১৫ দিনের মধ্যে লিচু বাজারে ভরপুর হয়ে উঠবে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এ মৌসুমে লিচুর বাম্পার ফলনের আশা করছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

জনপ্রিয় সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ