বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রী‌কে কু‌পি‌য়ে হত্যা, বাবা-ভাইকে জখম 
রিপোর্টারের নাম / ৯৭ বার
আপডেট সময় বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার: বরিশালের বাবুগঞ্জে পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রী মাহমুদা বেগমকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে নান্টু সিকদার নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। গৃহবধূকে রক্ষায় শ্বশুর-ভাশুর এগিয়ে গেলে তাদেরও কুপিয়ে জখম করা হয়।

উপজেলার জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের ব্রাহ্মণদিয়া গ্রামে বুধবার রা‌তে এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই নান্টুকে গ্রেপ্তার ক‌রে‌ছে পু‌লিশ।

বাবুগঞ্জ থানায় বৃহস্পতিবার দুপু‌রে মাহমুদার বড় ভাই মো. নূরে আলম হত্যা মামলা করেছেন।

দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাবুগঞ্জ থানার ওসি মো. মাহাবুবুর রহমান।

২২ বছর বয়সী মাহমুদা বরিশালের গৌরনদী থানার শরিকল ইউনিয়নের কুরিরচর গ্রামের খলিলুর রহমানের মেয়ে। ২৮ বছর বয়সী নান্টু বাবুগঞ্জের ব্রাহ্মণদিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

মাহমুদার স্বজনদের বরাতে পুলিশ জানায়, বুধবার রাত ১১টার দিকে নান্টু হঠাৎ মাহমুদাকে দা দিয়ে কোপাতে শুরু করেন। এ সময় মাহমুদা চিৎকার দিয়ে ঘর থেকে বেরোনর চেষ্টা করেন। চিৎকার শুনে নান্টুর বাবা চানমদ্দিন সিকদার এগিয়ে গেলে তাকেও দা দিয়ে আঘাত করেন নান্টু। একপর্যায় মাহমুদার ভাশুর মিন্টু সিকদার এগিয়ে গেলে তাকেও কুপিয়ে আহত করা হয়।

স্বজনরা জানান, স্বামীর হাত থেকে বাঁচতে বাড়ির পাশে একটি বাগানে দৌড়ে পালান মাহমুদা। সেখানে গিয়েও তাকে উপর্যুপরি কুপিয়ে হত্যা করেন নান্টু।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নান্টুকে গ্রেপ্তার করে। জব্দ করা হয়েছে হত্যায় ব্যবহৃত দা।

নূ‌রে আলম জানান, নান্টুর সঙ্গে পাঁচ-ছয় বছর আগে মাহমুদার বিয়ে হয়। নান্টু সিকদার ঠিকমতো কাজ না করায় বিয়ের কয়েক বছর পরে তাদের সংসারে অভাব-অনটন দেখা দেয়। গত সপ্তাহে মাহমুদা তার বাবার বাড়ি চলে যান। দুদিন পর নান্টু গিয়ে স্ত্রীকে নিজ বা‌ড়ি‌তে আনেন।

নান্টুর ভাই পিন্টু সিকদার বলেন, ‘কিছুদিন আগে মাহমুদাকে গলাটিপে হত্যার চেষ্টা চালায় নান্টু। এরপর মাহমুদা বাপের বাড়িতে চলে যান। বুধবার বিকেলে তিনি বাড়িতে ফিরলে রাতেই স্বামীর নৃশংসতার শিকার হন।’

জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য রব বেপারী জানান, খবর পেয়ে আগরপুর ক্যাম্প পুলিশ ও গ্রামবাসী ওই বাড়িতে ছুটে গেলে নান্টু সিকদার তাদের দিকেও দা নিয়ে তেড়ে যান। একপর্যায়ে পুলিশ ও গ্রামবাসী ধাওয়া করে নান্টুকে আটক করে।

বাবুগঞ্জ থানার ওসি বলেন, ‘পারিবারিক কলহ, সন্তান না হওয়া এবং কাজকর্ম না করায় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত নান্টু এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় তাকে রাতেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

জনপ্রিয় সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ