শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:৪২ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

এক ডজনের বেশী মামলার আসামী সফিকুল আবারো আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী পদ চান
রিপোর্টারের নাম / ৯৭ বার
আপডেট সময় শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২

এনই আকন্ঞ্জি :এক ডজনেরও বেশী মামলা হত্যা,গুম,চাদাবাজি,ভূমিদস্যুতা,হেন অপরাধ নেই যার সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে মামলার আসামী হতে হয়নি তাকে। সরাইলের অরুয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্মেলনের আগে বর্তমান সাধারন সম্পাদক সফিকুল ইসলামের এই অপরাধ বৃত্তান্ত উঠে এসেছে সামনে। সফিকুল আবারো সাধারন সম্পাদক প্রার্থী।

১৬ই জুলাই অরুয়াইল ইউনিয়নের সম্মেলন । প্রায় ৭ বছর পর সম্মেলন হচ্ছে। এর আগে সম্মেলন হয়েছিলো ২০১৫ সালের ২৫ শে ফেব্রুয়ারী।
সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক পদে ৬/৭ জন প্রার্থী থাকলেও আলোচনা সফিকুল ইসলামকে নিয়ে। অভিযোগ সরকারী দলীয় সেক্রেটারীর পদ পাওয়ার পরই বেপড়োয়া হয়ে উঠেন সফিকুল। এরপরই ২০১৭ সালে তাকে দল থেকে বহিস্কার করার দাবি তুলেন এলাকার ভূক্তভোগী মানুষেরা। পোষ্টারিং হয় তার বিরুদ্ধে। হত্যা ,চাদাবাজি,গুম-অপহরন,বাড়ি দখল,দোকান দখলসহ নানা অপরাধে হওয়া এক ডজনের বেশী মামলার বিবরন দেয়া হয় তাতে।
এক সময় এল এম জি নিয়ে ঘুরে বেড়ানোর কারনে এল এম জি সফিক নামেই পরিচিত হয়ে উঠেন তিনি এলাকার মানুষের কাছে।
সেখানকার ফতেহপুর গ্রামের জুলহাস নামের এক যুবকের প্লাস দিয়ে টেনে দাত তুলে ফেলার ঘটনা আলোচিত। নিজের শিশু সন্তানকে অপহরনের অভিযোগেও মামলা হয় সফিকুলের বিরুদ্ধে।
অরুয়াইল বাজারে সুব্রত মল্লিকের দোকান ,ধামাউড়ার সাঈদ মিয়ার বাড়ি দখল, অরুয়াইল বাজারের ব্যবসায়ী সজল রায়ের কাছ থেকে ৩ লাখ টাকা চাদা আদায়,অরুয়াইল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সালাউদ্দিনকে লাঞ্ছিত করার ঘটনাও আলোচিত হিসেবে স্থান পায় পোষ্টারে।
তবে সফিকুল ইসলাম জানান-তার গ্রামে ৪/৫টি মার্ডার হয়। এসব হত্যা ঘটনায় তাকে আসামী করা হয়। তবে সব মামলাই এখন নিস্পত্তিকৃত। রাজনৈতিক শত্রুরা তার বিরুদ্ধে মিথ্যা বলছে। তবে সরাইল থানার রেকর্ডে তার বিরুদ্ধে ৬টি মামলার তথ্য রয়েছে।

সম্মেলনে বর্তমান সভাপতি হাজী আবু তালেব,মুক্তিযোদ্ধা সাহের উদ্দিন,বোরহান উদ্দিন ও শফিকুল ইসলাম সভাপতি এবং
সাধারন সম্পাদক পদে সফিকুল ইসলাম ও বাশারব হোসেন ভূইয়ার নাম আলোচনায় রয়েছে। তবে হাজী আবু তালেব ও সফিকুল ইসলাম দু’জনেই তাদের কোন প্রতিদ্বন্ধি নেই বলে জানান।

সরাইল উপজেলার ৯ ইউনিয়নের মধ্যে ২ ইউনিয়নের সম্মেলন হয়েছে। বাকী ৭ ইউনিয়নের মধ্যে ৬টির ওয়ার্ড সম্মেলন শেষ হয়েছে। সেসব ইউনিয়নের সম্মেলন শুরু হচ্ছে ১৬ জুলাই অরুয়াইল ইউনিয়ন সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে। তবে সদর ইউনিয়নের কোন ওয়ার্ডের সম্মেলন হয়নি।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

জনপ্রিয় সংবাদ
সর্বশেষ সংবাদ